প্রাকৃতিক কোনো বিপর্যয় না ঘটলে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বাড়বে: বন বিভাগ

Total Views : 77
Zoom In Zoom Out Read Later Print

আগামীকাল রোববার পালিত হবে ‘বিশ্ব বাঘ দিবস’। বাগেরহাটের পর এ বছর খুলনাতে জাতীয়ভাবে দিবসটি পালনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে-‘বাঘ বাঁচাই, বাঁচাই বন, রক্ষা করি সুন্দরবন’। যে কোনো সময়ের চেয়ে বর্তমানে সুন্দরবনে বাঘ রক্ষায় বেশি মনোযোগী সরকার। তাই সুন্দরবন সংলগ্ন জেলার মানুষকে সচেতন ও বাঘ রক্ষায় সম্পৃক্ত করতে দুই বছর ধরে ঢাকার বাইরে জাতীয় ভাবে পালন করা হচ্ছে ‘বাঘ দিবস’। দেশে বাঘের একমাত্র আবাসস্থল সুন্দরবন। কয়েক বছর আগেও চোরাশিকারীচক্র এবং জলদস্যু-বনদস্যুদের তৎপরতার কারণে সুন্দরবনে বাঘ হুমকির মুখে ছিল। সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর পদক্ষেপে সুন্দরবনে দস্যুতা এবং চোরাশিকারীদের তৎপরতা কমেছে। এ কারণে সুন্দরবনে আগের তুলনায় বাঘ অনেকটা সুরক্ষিত এবং বাঘের বিচরণক্ষেত্রও নিরাপদ বলে মনে করছে বন বিভাগ। এর ফলে অদূর ভবিষ্যতে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে এমন আশা বিশেষজ্ঞ ও বন বিভাগ কর্তৃপক্ষের। খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী জানান, সুন্দরবনের দস্যুরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসছে। তাদের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে যে কোনো সময়ের চেয়ে সুন্দরবনে দস্যুতা কমে গেছে। বন বিভাগ এবং আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানের কারণে সুন্দরবনে চোরাশিকারীদের তৎপরতা নেই বললেই চলে। ফলে সুন্দরবনে বাঘ অনেকটা সুরক্ষিত। গত দুই বছরে সুন্দরবনে শিকারীদের হাতে কোনো বাঘ হত্যার খবর পাওয়া যায়নি। বন্যপ্রাণি ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চলের বন সংরক্ষক মো. জাহিদুল কবির জানান, কিছুদিন আগেও বিশ্বের ১৩টি দেশে বাঘ ছিল। কম্বোডিয়ায় বাঘ শূন্য হওয়ার কারণে এখন বাংলাদেশসহ ১২টি দেশে বাঘের অস্তিত্ব টিকে আছে। সুন্দরবনে বর্তমানে বাঘের জন্য যে সব ঝুঁকি আছে তা নিয়ন্ত্রণে আছে। তিনি বলেন, বাঘ শিকার রোধে মনিটরিং করা হচ্ছে। সুন্দরবনে বাঘ শিকার বন্ধ রয়েছে। এই অবস্থা ধরে রাখতে পারলে সিডর বা আইলার মতো প্রাকৃতিক এবং পরিবেশগত কোনো বিপর্যয় না ঘটলে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বাড়বে। তবে তিনি সুন্দরবনে হরিণ শিকার পুরোপুরি ভাবে বন্ধ করতে হবে এমন কথা জানালেন। বন্যপ্রাণি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করে সুন্দরবনে বাঘ টিকে আছে। সারা পৃথিবী থেকে বাঘ হারিয়ে গেলেও নিরপত্তা অটুট থাকলে সুন্দরবন থেকে বাঘ হারানোর সম্ভাবনা কম। বন বিভাগের তথ্য মতে, বাংলাদেশ, ভারত, বার্মা, থাইল্যান্ড, ইন্দ্রোনেশিয়া, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, লাওস, ভুটান, নেপাল ও রাশিয়ায় বাঘের অস্তিত্ব বজায় রয়েছে। ভিয়েতনাম ও লাওসে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে বাঘ। বাঘের আটটি উপ-প্রজাতির মধ্যে ইতোমধ্যে বালিনীজ টাইগার, জাভানীজ টাইগার ও কাম্পিয়ান টাইগার বিশ্ব হতে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। বর্তমানে পাঁচটি উপ-প্রজাতি কোন রকম টিকে আছে। সে গুলো হচ্ছে, বেঙ্গল টাইগার, সাইবেরিয়ান টাইগার, সুমাত্রান টাইগার, সাউথ চায়না টাইগার এবং ইন্দো-চায়না টাইগার। সারা বিশ্বের বন উজাড়, শিকারী ও পাচারকারীদের কারণে বাঘ মহাবিপন্ন প্রজাতি হিসেবে চিহিৃত হয়েছে। এ অবস্থায় বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের সংখ্যা বাড়তে পারে এমন আশার কথা সু-সংবাদ হয়ে এসেছে। সরকারের বিশেষ অগ্রাধিকার ও আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরিত প্রটোকল অনুসারে সুন্দরবনে বাঘ রক্ষার জন্য বন বিভাগ কাজ করছে। ওয়াইল্ড টিমের প্রধান নির্বাহী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম জানান, সারা পৃথিবী থেকে বাঘ হারিয়ে গেলেও সুন্দরবন থেকে বাঘ হারানোর সম্ভাবনা কম। নদ-নদী বেষ্টিত সুন্দরবন। বাঘ না বাঁচলে সুন্দরবন টিকবে না। সুন্দরবন মায়ের মতো। বাঘের সঙ্গে দেশের সুনাম জড়িয়ে রয়েছে। ------------------------------------------------------ আরও পড়ুন : শতাব্দীর দীর্ঘতম পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ প্রত্যক্ষ করলো বাংলাদেশ ------------------------------------------------------- তিনি বলেন, বাঘের খাবার টিকিয়ে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে সুন্দরবনে হরিণ সংরক্ষণ করতে হবে। পাশাপাশি বনের উপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠীর জীবন-জীবিকার কথাও ভাবতে হবে। বনের মধ্যে মানুষের বিচরণ কমাতে হবে। পর্যটকদের জন্য বনকেন্দ্রিক তথ্য ভান্ডার গড়ে তোলার কথা জানান তিনি। সুন্দরবনের মোট আয়াতন ছয় হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার। এর মধ্যে স্থলভাগের পরিমান চার হাজার ১৪৩ বর্গ কিলোমিটার। সুন্দরবনে প্রতিটি বাঘ তাদের আবাসস্থলের জন্য ১৪ থেকে ১৬ বর্গ কিলোমিটার (হোমরেঞ্জ) চিহিৃত করে সেখানে বাস করে। আর গোটা সুন্দরবন জুড়েই রয়েল বেঙ্গল টাইগার বিচরণ করে থাকে। বলা হয়, বাঘ সুন্দরবনের ফ্লাগশিপ ইস্পশীজ হিসাবে কাজ করছে। সুন্দরবনে জলদস্যু-বনদস্যু এবং চোরাশিকারীদের তৎপরতা কম শুধু বাঘের কারণে। বাঘ না থাকলে সুন্দরবনও হুমকির মধ্যে পড়বে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্র: ইউএনবি।


See More

Latest Photos